দাঁতের হলদে ভাব কাটিয়ে সহজে উজ্জ্বল ও‌ ঝকঝকে দাঁত ফিরে পেতে কাজে লাগান এই আধুনিক পদ্ধতিগুলো....

দাঁতের হলদে ভাব প্রায় সবারই এক সাধারণ সমস্যা। অনেক টাকা খরচ করে দাঁত পরিষ্কার করার কিছু মাস পরেই আবার হলদে ভাব চলে আসে। নানা কারণে দাঁতে এই হলুদ দাগ দেখা দিতে পারে। যেমন দাঁতের অযত্ন, তামাক সেবন, নিয়মিত ওষুধ সেবন, পান মশলা কিংবা মদ্যপানের কারণে চলে যেতে পারে দাঁতের স্বাভাবিক শুভ্রতা। কিন্তু কিছু ঘরোয়া পদ্ধতি ব্যবহার করে আপনার দাঁতের সুভ্রতা ফিরিয়ে আনতে পারেন। চলুন দেখে নেওয়া যাক....

১. কমলা লেবুর খোসা: রোজ দুপুরে এবং রাতে কমলা লেবুর খোসা দাঁতে একটু সময় নিয়ে ঘসুন। কমলা লেবুর খোসা দাঁতের হলদে ভাব কাটিয়ে দাঁতের স্বাভাবিক উজ্জ্বলতা ফিরিয়ে  আনতে খুব কার্যকরী।

২.খাবার সোডা: দাঁতের হলদে ভাব কাটাতে খাবার সোডা ব্যবহার এর আর সহজ বিকল্প নেই। সপ্তাহে অন্তত তিন দিন টুথপেষ্টের সঙ্গে অল্প পরিমাণ খাবার সোডা মিশিয়ে দাঁত মাজুন। এতে দাঁতের হলদে ভাব খুব শিগ্রী দূর হবে। খাবার সোডা মিশিয়ে দাঁত মাজার পর উষ্ণ গরম জল দিয়ে মুখ ধুয়ে নেবেন। এই ঘরোয়া পদ্ধতি মেনে দাঁতের যত্ন নিলে খুব তাড়াতাড়ি সুফল পাবেন।

3. নুন: বহুজুগ ধরেই দাঁত পরিষ্কার করতে নুনের ব্যবহার হয়ে আসছে। নুন দাঁতের পুষ্টির ঘাটতি দূর করে দাঁতের সৈন্দর্য বৃদ্ধি করে এবং দাঁত কে দীর্ঘ স্থায়ী করে তোলে। তাই দাঁতের হলদে ভাব দূর করায় নুনের ব্যবহার করতে বলেন অনেক বিষেশজ্ঞরা। এক্ষেত্রে চারকল অথবা সরষের তেল এর সাথে নুন মিশিয়ে দাঁত মাজুন। এতে করে দাঁতের হলদে ভাব যাবে এবং দাঁত সুস্বাস্থ্যের অধিকারী হবে।

4. তুলসী পাতা: তুলসী শুধু স্বাস্থ নয় দাঁতের পক্ষেও খুব উপকারী। এক্ষেত্রে অনেক. গুলি তুলসী পাতা কে রোদে শুকনো করে যেকোনো টুথপেষ্টের সঙ্গে মিশিয়ে দাঁত ব্রাশ করলে দাঁতের হলদে ভাব অনেকটাই কমে যাবে।

5.কলার খোসা: কলার খসার সাদা দিকটি দাঁতে ঘষেলে খুব তাড়াতাড়িই দাঁতের হলদে ভাব কেটে যায়। তবে এটি দিয়ে দাঁত ঘষলে গরম জল দিয়ে মুখ ধুয়ে নেবেন।

তবে দাঁত ভাল রাখতে একটা কথা সব সময় মাথায় রাখতে হবে। দিনের যে কোনও সময় খাবার পর অবশ্যই মুখ ভাল করে ধুয়ে ফেলতে হবে। সম্ভব হলে দিনে অন্তত দু’বার করে দাঁত মাজতে হবে। এ ছড়াও, ধূমপানের ফলেও দাঁতে হলদেটে ছোপ পড়ে। তাই ধূমপানের মাত্রা কমালে বা ধূমপানের অভ্যাস ত্যাগ করতে পারলে দ্রুত উপকার মিলবে।

বছরে অন্তত দু’বার দন্ত চিকিত্সকের পরামর্শ নিন। আর একটা জরুরি কথা। দাঁত কখনওই একেবারে সাদা হয় না। বিভিন্ন উপাদানের ব্যবহারে জোর করে দাঁত সাদা ঝকঝকে করার চেষ্টায় হিতে বিপরীত হওয়ার ঝুঁকি কিন্তু থেকেই যায়।