কোন সবজির কোন গুণ? আলু,বেগুন,টমেটো সহ আরো সাতটি সব্জির গুনাগুন জেনে নিন

সব সবজিই আমাদের শরীরে খুব উপকারী।কিন্তু কোন সব্জিতে কি গুনাগুন রয়েছে আমরা জানিনা।নিত্য প্রয়োজনীয় এই এই সব্জিতে কি কি ভিটামিন আছে এবং তারা আমাদের শরীরে কি কাজ করে তা জেনে নিন.....

১.টমেটো :
একটি সুস্বাদু ও পুষ্টি সমৃদ্ধ সবজি।  খাদ্য উপাদান রয়েছে ভিটামিন সি ভিটামিন এ ভিটামিন A, ভিটামিন C, ফলেজ, এবং ভিটামিন E। এটি রক্তে গ্লুকোজের মাত্রা নিয়ন্ত্রণ করে করে নিয়ন্ত্রণ করে করে। এতে আছে  শরীরের প্রয়োজনীয় এন্টিঅক্সিডেন্ট যা চুলের ক্ষতির হাত থেকে হাত থেকে ক্ষতির হাত থেকে হাত থেকে চুলের ক্ষতির হাত থেকে হাত থেকে ক্ষতির হাত থেকে হাত থেকে রক্ষা করে। কাঁচা এবং পাকা দুই ধরনের টমেটোই পুষ্টিগুণসম্পন্ন।

২.পালং শাক:
সবাই কমবেশি পালং শাক খেতে পছন্দ করি পালংশাকে রয়েছে পটাসিয়াম ভিটামিন ভিটামিন এবং মিনারেল এতে প্রচুর পরিমাণে এন্টি অক্সিডেন্ট উপাদান আছে যাদের পেটটিকেল ধ্বংস করে দেয় এবং ত্বকে বয়সের ছাপ পড়তে দেয় না।পালং শাকে প্রচুর পরিমাণে পুষ্টিগুণ রয়েছে সেরা খাবারের তালিকায় উঠে এসেছে পালং শাক। ভিটামিন A, ক্যালসিয়াম, ফস্ফরাস এবং আয়রন থাকে প্রচুর পরিমাণে। স্মৃতিশক্তি নষ্ট হওয়া রোধ করে এবং ধরে রাখে। পালং শাক জন্ডিস সারতে উপকারী।

৩.মিষ্টি কুমড়ো :  মিষ্টি কুমড়ার পুষ্টিগুণ এর কোন কমতি নেই। মিষ্টি কুমড়ার রয়েছে অ্যান্টি অক্সিড্যান্ট, ভিটামিন -C ,কপার,ভিটামিনE,পটাসিয়াম,ফস্ফরাসে মতো খনিজ উপাদান। কুমড়ো চোখের সমস্যার সমাধানে উদ্যোগী।এটি ক্যানসার প্রাতিরধ করতে ও রোগ প্রতিরোধ করতে সাহায্য করে। কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করতে সাহায্য করে ।এতে রয়েছে জিংক যা ইমিউনিটি সিস্টেম ভালো রাখে।

৪.মটরশুটি:
ফাইবার ও  মিনারেল এবং দ্রবণীয় ভিটামিন রয়েছে। মটরশুঁটি তে রয়েছে উচ্চমাত্রার কার্বোহাইড্রেট । মটরশুটি রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে এতে রয়েছে বি ওয়ান, ভিটামিন b3 ভিটামিন B6। হাড় কে মজবুত রাখতে সাহায্য করে। কালসিউম ঘাটতি মেটাতে সাহায্য করে। কোষ্ঠকাঠিন্যে কমাতে খুব উপকারী। ব্লাড সুগার কমাতে সাহায্য করে। হার্ট এর সমস্যায় উপাকারি। ক্ষতিকর কলেস্তরল কমিয়ে  উপকারী কলেস্তেতর বাড়াতে সাহায্য করে।
  

৫.বেগুন:
বেগুনে আছে ভিটামিন C, পটাসিয়াম, ফাইবার,বেগুন ওজন কমাতে সাহায্য করে।এতে রয়েছে অ্যান্টি অক্সিডেন্ট যা হার্ট কে সুস্থ রাখতে সাহায্য করে। বেগুন খেলে রক্ত চাপ কমাতে সাহায্য করে। বেগুন মুখের বলি রেখা কমাতে সাহায্য করে।
বেগুন ত্বক ও চুল ভাল রাখে।

৬.ঢেঁড়শে:
এতে রয়েছে ভিটামিন এ, অ্যান্টি অক্সিডেন্ট,নানান রকম খনিজ এবং মিনারেলে ভরপুর। শ্বাসকষ্ট প্রতিরোধ করে। রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায় বাজে কলেস্টেরল কমায়, ত্বকের বিষাক্ত পদার্থ দূর করে, ব্রোনো দূর করতে সাহায্য করে । ক্যান্সারের ঝুঁকি কমায়, রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়।এবং প্রয়োজনীয় মিনারেল ক্যালসিয়াম ম্যাগনেশিয়াম ইত্যাদি রয়েছে। এটি হজমে সাহায্যকারী।  চুলের উজ্জলতা বাড়াতে খুব সাহায্য করে। চুলের প্রাকৃতিক কন্ডিশনার হিসেবে বেশ ভালো। এটি খুশকি দূর করে। দৃষ্টিশক্তি ভালো রাখে এবং  চোখের ছানি প্রতিরোধ করতে সাহায্য সাহায্য প্রতিরোধ করতে সাহায্য করতে সাহায্য সাহায্য করে।

৭. গাজর :
এটিতে আছে ভিটামিন A যা দৃষ্টি শক্তি বাড়াতে সাহায্য করে। গাজর ক্যানসার এর ঝুঁকি কমায় । এটি অ্যান্টি এজিং এর কাজ করে। 

8. আলু:
আলু একটি নিত্য প্রয়োজনীয় সবজি। আলু ছাড়া রান্না বান্না যেন অসম্পুর্ন।কিন্তু কি আছে এই আলুতে ? আলুর গুণ কিন্তু অপরিসীম। আলু এনার্জি বাড়াতে সাহায্য করে।আলুতে আছে ফাইবার,মিনারেল আর ভিটামিন,বিভিন্ন খনিজ । এতে আছে পটাসিয়াম,মাগ্নেসিউম যা কম নিদ্রা তে সাহায্য করে। হার্ট সুস্থ রাখে। এতে গ্লুকজ রয়েছে । এটি হযম সমস্যা দূর করে। পাচন তন্ত্র সুস্থ রাখে। শরীর গঠন ঠিক রাখেতে সাহায্য করে।

৯. কাঁচা পেঁপে:
এটি পেটের বিভিন্ন সমস্যা দূর করতে এই সব্জির জুড়ি মেলা ভাব।
কাঁচা পেঁপে ব্লাড প্রেসার ঠিকঠাক রাখে শুধু তাই নয় রক্তের প্রবাহ কেউ কিন্তু নিয়ন্ত্রণ করে । কাঁচা পেঁপে শরীরের ভেতরের ক্ষতিকর সোডিয়ামের পরিমাণ কমিয়ে দেয় ফলে হৃদরোগের সমস্যা থাকে না বললেই চলে বা সমস্যার হাত থেকে আপনি সহজেই মুক্তি পেতে পারেন । ব্লাড প্রেসার নিয়ন্ত্রণে রাখে।  প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি ও এ রয়েছে এগুলো 100 গ্রামের মাত্র 39 ক্যালরির পরিমাণ শুধু তাই নয় এর মধ্যে রয়েছে এন্টিঅক্সিডেন্ট  যা চর্বির পরিমাণ কমিয়ে দিতে সাহায্য করে। এত পুষ্টি গুণ রয়েছে যেকোনো ধরনের সংক্রামক ব্যাধি থেকে রক্ষা করে।



১০.উচ্ছে: 

প্রতিদিন নিয়ামিত উচ্ছে রস খেলে সুগার প্রতিরোধ করতে সাহায্য করবে। এতে আছে ভিটামিন A & C।  ডায়বেটিস রোগীদের জন্য এটি উত্তম। উচ্ছের রসে আছে অ্যান্টি অক্সিড্যান্ট যা শরীর থেকে দূষণ রোধ করতে পারে। হজম প্রক্রয়ায় গতি বাড়ায়। এছারাও এতে আছে রোগ প্রতিরোধকারি লুতিন এবং ক্যান্সার রোধকারি লাইকপিন। এটি উচ্চ রক্ত চাপ নিয়ন্ত্রণ করে। এর রস রক্ত্ব সুগারের মাত্র কমিয়ে আনে । আপনাকে সুস্থ ও প্রাঞ্ছল রাখে।